1. tasermahmud@gmail.com : admi2017 :
  2. akazadjm@gmail.com : Taser Khan : Taser Khan
বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৩৭ পূর্বাহ্ন

বরিশালে বাড়ছে ‘ব্রকলি’ চাষ, লাভবান হচ্ছে কৃষক

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

বরিশালে অধিক পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ বিদেশি জাতের সবজি ‘ব্রকলি’ চাষ বাড়ছে। গত বছর বরিশালে পরীক্ষামূলকভাবে দুই জন কৃষি উদ্যোক্তা ব্রকলিসহ বিভিন্ন উন্নতজাতের সবজি চাষ করে সাফল্য পেয়েছেন। ভালো ফলন এবং বাজারে অধিক মূল্য পাওয়ায় এবার তাদের দেখে অনেকেই ব্রকলি চাষ করে আশার আলো দেখছেন। কৃষি বিভাগও নতুন নতুন সবজি চাষে উদ্বুদ্ধ করছেন কৃষকদের।

শখের বশে গত বছর বিদেশি জাতের সবজি ব্রকলি চাষ করে সাফল্য পেয়েছিলেন সদর উপজেলার কর্নকাঠীতে এডামস পার্কে নূরেন নাহার মারিয়া এবং নগরীর ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের করমজা এলাকার মুনজে এলাহী দুলাল। গত বছর তারা দুই জনেই ভালো ফলন পেয়েছিলেন। নতুন জাতের সবজিতে সাধারণের আগ্রহ থাকায় অধিক মুনাফাও করেছিলেন তারা।

মুনজে এলাহী দুলাল বলেন, পৃথিবীতে ব্রকলির মতো এত পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ সবজি আর নেই। বিষয়টি জানার পর গত বছর শখেরবশত তিনি ১২০টি ব্রকলির চারা রোপন করেছিলেন। ফলনও ভালো হয়েছিল। দামও পেয়েছেন বেশ। সেই ধারাবাহিকতায় এবার একই এলাকায় ১ হাজার ২শ’ ব্রকলির চারা রোপন করেছেন। এবারও ফলন ভালো হয়েছে। আগামীতে তিনি ব্রকলির ৩ হাজার চারা রোপনের আশা করছেন। স্থানীয় মানুষজন যাতে পৃথিবীর সব চেয়ে পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ ব্রকলি সবজি হাতের নাগালে পায় সেজন্য তিনি উদ্যোগ নেবেন।
সদর উপজেলার কর্নকাঠীতে এডামস ইডেনেও এবার ব্রকলি চাষ গতবারের চেয়ে বেড়েছে বলে জানিয়েছেন ওই পার্কের কর্মচারী মো. সাবিদ।

দুলাল ও মারিয়ার সাফল্যে বরিশালে এবার অনেকেই ব্রকলি চাষ করে আশার আলো দেখছেন।

২৭ নম্বর ওয়ার্ডের বামনীকাঠী এলাকার কৃষক আব্দুল বারেক প্রথমবারের মতো ব্রকলি চাষ করেছেন। স্বপ্ন নিয়ে সবজি ক্ষেত পরিচর্যা করছেন তিনি।

আব্দুল বারেক বলেন, পাশের এক উদ্যোক্তাকে দেখে তিনিও এবার ব্রকলি চাষ করেছেন। ফলন ভালো হয়েছে। ব্রকলি চাষে বাড়তি কোনো ঝামেলা নেই। শুধু জৈব সার আর পানি দিতে হয়। তবে আগাম চারা রোপন করতে পারলে ফলন ভালো হয়।

কৃষকরা জানান, নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে রোপন করা হয় ব্রকলির চারা। নিভীর পরিচর্যার পর আড়াই মাসেই ফুল ধরেছে। এই ফুলই ব্রকলি।

বরিশাল নগরীর লাইন রোডের বাকেরগঞ্জ বীজ ভান্ডারের সত্ত্বাধিকারী এসএম জাকির হোসেন জানান, বিদেশি জাতের ব্রকলিতে ক্যালসিয়াম, পটাসিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, ভিটামিন-এ, ভিটামিন-সি এবং ফাইবার সমৃদ্ধ। এই সবজির পুষ্টিগুণ অন্যান্য সবজির চেয়ে বেশি। এ কারণে জনগণের মাঝে নতুন এই সবজি নিয়ে বেশ আগ্রহ রয়েছে। বিশেষ করে চাইনিজ রেস্তোরাঁগুলো ব্রকলিতে বেশি আগ্রহী।

কৃষকরা জানান, বর্তমানে প্রতি কেজি ব্রকলি ১০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। এই সবজি খেতেও সুস্বাদু।

বরিশাল কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক হরিদাস শিকারী জানান, বিদেশি জাতের ব্রকলি দেখতে অনেকটা ফুলকপির মতো। তবে রং সবুজ। এই সবজির স্বাদ এবং পুষ্টিগুণ ফুলকপির চেয়ে বেশি। নতুন নতুন সবজি চাষ করলে কৃষক লাভবান হবে বলে স্বপ্ন দেখাচ্ছে কৃষি বিভাগ। এই লক্ষ্যে কৃষি বিভাগ কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করছে বলে জানান হরিদাস শিকারী।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2019-2023 usbangladesh24.com